মার্কেট টিকার    

ডিএসই ও চীনা কনসোর্টিয়াম :: শেয়ারবাজার উন্নয়নে কাজ করার অঙ্গীকার



দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ২৫ শতাংশ শেয়ার চীনা কনসোর্টিয়াম সেনজেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করেছে ডিএসই। একই সঙ্গে ডিএসইর এ্যাকাউন্টে জমা হয়েছে ৯৪৭ কোটি টাকা। একইদিনে থেকে চীনা কনসোর্টিয়ামের একজন প্রতিনিধি জি ওয়েনহাই ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক হিসেবে যোগদান করেছেন। পর্ষদের সভায় তিনি বাংলাদেশের শেয়ারবাজার উন্নয়নে কাজ করার অঙ্গীকার করেন।

রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। ওই সম্মেলনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের উন্নয়নে সহযোগিতা করবে চীনের দুই শেয়ারবাজার শেনঝেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের কনসোর্টিয়াম। এক্ষেত্রে লেনদেনে প্রযুক্তিগত উন্নয়ন, পণ্যের উন্নয়ন ও বাজারের বিভিন্ন বিষয়ের উন্নয়নকে গুরুত্ব দেয়া হবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) অংশীদার হওয়ার পরে এ কথা বলেছেন কনসোর্টিয়ামটির প্রতিনিধি চি ওয়েনহাই। যিনি এরই মধ্যে কনসোর্টিয়ামটির প্রতিনিধি হিসেবে ডিএসইর পর্ষদে যুক্ত হয়েছেন। চি ওয়েনহাই বলেন, চীনা কনসোর্টিয়াম গভীর গবেষণা ও পারস্পরিক পরামর্শের মাধ্যমে একটি আন্তরিক, সহযোগিতামূলক ও উভয়ের জন্য উপকারী কাজ করবে।

সংবাদ সম্মেলনে ডিএসই এর চেয়ারম্যান আবুল হাসেম বলেন, পুঁজিবাজারের জন্য আজকের দিনটি ঐতিহাসিক। কারণ আজকের এই চুক্তির মাধ্যমে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ আন্তর্জাতিক শেয়ার মার্কেটে পরিণত হতে যাচ্ছে। সকালে সাংহাই ও সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জের বিও এ্যাকাউন্টে শেয়ার হস্তান্তর করা হয়েছে এবং তারা স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক ও সিটি ব্যাংকের মাধ্যমে শেয়ারের মূল্য (৯৪৭ কোটি টাকা) পরিশোধ করেছেন। এ বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, শেয়ার বিক্রির এই টাকা ডিএসইর সদস্য ব্রোকারদের। কোন ধরনের শর্ত ছাড়াই এ টাকা ব্রোকারদের বুঝিয়ে দেয়া হবে। ব্রোকাররা তাদের ইচ্ছা মতো টাকা বিনিয়োগ করতে পারবেন। তবে তারা যেহেতু শেয়ার ব্যবসা করেন, তাই আমরা আশা করব তারা এ টাকা শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করবেন। তবে কবে নাগাদ শেয়ার বিক্রির টাকা সদস্যদের বুঝিয়ে দেয়া হবে সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে এমন এক প্রশ্ন করা হলে তার কোন উত্তর দেননি মাজেদুর রহমান।

উল্লেখ্য, গত ২৬ আগস্ট বাংলাদেশ ব্যাংক চীনের সাংহাই ও সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জ জোটকে নিটা এ্যাকাউন্ট খোলার অনুমতি দেয়। কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে গত ১৪ মে চীনা জোটের সঙ্গে চুক্তি সই করে ডিএসই। ওই চুক্তি অনুযায়ী, কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে চীনা জোট ডিএসইর ২৫ শতাংশ বা ৪৫ কোটি ৯ লাখ ৪৪ হাজার ১২৫টি শেয়ার কিনেছে তারা। এজন্য প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে ২১ টাকা দরে মোট ৯৬২ কোটি টাকা পরিশোধ করেছে সাংহাই ও সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জ জোট। ডিএসইর শেয়ারের বিপরীতে জোটের দেয়া অর্থ ডিএসইর সদস্য ব্রোকারদের ভাগ করে দেয়া হবে। এর মধ্যে ১৫ কোটি টাকা স্ট্যাম্প ডিউটি হিসেবে সরকারের কোষাগারে জমা দেয়া হবে। বাকি থাকবে ৯৪৭ কোটি টাকা।

 





মুদ্রার হার

নামাজের সময়সূচি