z

কালো টাকা বিনিয়োগের সুযোগ পুঁজিবাজারে



আস্থা আর তারল্য সঙ্কটের পর করোনাভাইরাসের প্রভাবে ধুঁকতে থাকা পুঁজিবাজারের জন্য বাজেটে তারল্য প্রবাহ বাড়াতে অপ্রদর্শিত অর্থ (কালো টাকা) বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়া হয়েছে। আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে এই সুবিধার প্রস্তাব করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ৩টা থেকে সংসদের বিশেষ বাজেট অধিবেশনে 'অর্থনৈতিক উত্তরণ ও ভতিষ্যৎ পথ পরিক্রমা' শীর্ষক স্লোগান সম্বলিত ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

প্রস্তাব অনুসারে, শেয়ার, বন্ড বা যেকোনো সিকিউরিটিজের ওপর ১০ শতাংশ কর প্রদান করে আয়কর রিটার্নে প্রদর্শন করলে আয়কর কর্তৃপক্ষসহ অন্য কোনো কর্তৃপক্ষ কোনো প্রশ্ন করতে পারবে না। অবশ্য পুঁজিবাজারে পাশাপাশি জমি, বিল্ডিং, ফ্ল্যাট ও অ্যাপার্টমেন্টের প্রতি বর্গমিটারের ওপর নির্দিষ্ট হারে এবং নগদ অর্থ, ব্যাংকে গচ্ছিত অর্থ, সঞ্চয়পত্রে কালো টাকা বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে বাজেট বক্তৃতায় বলা হয়েছে, দেশের প্রচলিত আইনে যাই থাকুক না কেন, ব্যক্তিশ্রেণির করদাতাদের চলতি অর্থবছরের ১ জুলাই থেকে ২০২১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত আয়কর রিটার্নে অপ্রদর্শিত শেয়ার, বন্ড বা যেকোনো সিকিউরিটিজের ওপর ১০ শতাংশ কর প্রদান করে আয়কর রিটার্নে প্রদর্শন করলে আয়কর কর্তৃপক্ষসহ অন্য কোনো কর্তৃপক্ষ কোনো প্রশ্ন করতে পারবে না।

পুঁজিবাজারে চলমান মন্দা কাটাতে এই বাজারে তারল্য বাড়ানোর জন্য স্টক এক্সচেঞ্জ, ব্রোকার এবং বিনিয়োগকারীদের পক্ষ থেকে বাজেটে কালো টাকা বিনিয়োগ করার সুযোগ চাওয়া হয়েছিল। তার প্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রী বাজেটে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের মাধ্যমে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ প্রস্তাব করেছেন।




মুদ্রার হার

নামাজের সময়সূচি